ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ ফ্রিল্যান্সিং কোন কাজের চাহিদা বেশি দেখুন

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ ফ্রিল্যান্সিং কোন কাজের চাহিদা বেশি দেখুন সকল বিষয় বিস্তারিত দেখুনঃ

বেকারত্বের গ্রাফে ক্রমেই উর্ধ্বস্তর ওঠা বাংলাদেশে উদ্যোক্তা হওয়ার পাশাপাশি সবচেয়ে বড়ো যে মাধ্যম টি এই গ্রাফ কে নিম্নমুখী করতে পারে, তা হলো ফ্রি-ল্যান্সিং। এটি এমন একটা কাজ, যার জন্য কোনো সুনির্দিষ্ট ধরাবাঁধা সময় যেমন নেই,তেমনই নেই কোনো ধরাবাঁধা স্যালারির অংক। কারোর ব্যাক্তিগত দক্ষতা ও সময়ের যথোপযুক্ত ব্যাবহার করে সাফল্যের চূড়ায় আরোহন করা সম্ভব। 

ফ্রি-ল্যান্সিং কী? ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

ফ্রি-ল্যান্সিং হলো একটি মুক্ত পেশা, যেখানে পেশার সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যাক্তি নিজের ব্যাক্তিগত দক্ষতার মাধ্যমে ইন্টারনেটের সাহায্যে বিভিন্ন  কাজ করে অর্থ উপার্জন করে। যেহেতু ফ্রিল্যান্সিং একটা মুক্ত পেশা সেহেতু যেমন ধরাবাঁধা নিয়ম নেই কাজের, ঠিক তেমনিভাবে কোনো ধরাবাঁধা আর্থিক কোনো ব্যাপার ও নেই। অর্থাৎ এটি সাধারণ চাকরির মতো কিছুটা হলেও এটি সাধারণ চাকরির দিক থেকে সম্পুর্ণ ভিন্ন প্রায়। সাধারণ চাকরির চেয়ে সবচেয়ে বড়ো যে বৈপরীত্য ফ্রিল্যান্সিং এ আছে তা হলো, অফিস তথা কর্মস্থল। ফ্রিল্যান্সিং এ কোনো নির্দিষ্ট ককর্মস্থল নাই,অর্থাৎ বাড়িই হয়ে ওঠে একজন ফ্রিল্যান্সারের অফিস। 

ফ্রিল্যান্সিং এর আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারটা হলো, নির্দিষ্ট কোনো ইমপ্লয়ার নেই অর্থাৎ যে বায়ারের বা যার কাজ ফিল্যান্সার করবেন, সেই তার ইমপ্লয়ার। বায়ারের সাথে সাথে ইমপ্লয়ারের ও পরিবর্তন হয় প্রতিনিয়ত। ফ্রিল্যান্সার সহজেই বায়ারের সাথে যোগাযোগ করে অল্প,মাঝারি থেকে শুরু করে বেশি বেতনের কাজ করতে পারবেন যদি যথেষ্ট পরিমাণ দক্ষতা থাকে।

সারা পৃথিবীতে দক্ষতার কদর করা হয় সর্বদা সবার আগে, ভালো এবং দক্ষ একজন ফ্রিল্যান্সার বৈদেশিক বিভিন্ন ইমপ্লয়ার বা সেক্টরে কাজ করে একটা ভালো পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারে যা একটা সরকারি বা বেসরকারি চাকরির বেতনের তুলনায় কোনো অংশে কম না।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহফ্রিল্যান্সিং এর কাজসমূহ 

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজসমূহের উদাহরণ হতে পারে অসংখ্য। তন্মধ্যে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজসমূহের মধ্যে সবচেয়ে জরুরি হলো দক্ষতা। অর্থাৎ আপনি যে বিষয়েই কাজ করেন না কেন, সেই বিষয়ে দক্ষ হওয়া সবচেয়ে জরুরি। ফ্রিল্যান্সিং এর কাজসমূহের মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ হলো,

  • ওয়েব ডেভেলপার /কোডার/প্রোগ্রামার
  • ডিজাইনার 
  • রাইটার / কপিরাইটার
  • প্রফেশনাল মার্কেটিং
  • ভিডিও গ্রাফার
  • একাউন্টিং
  • ট্রান্সলেটর 
  • HR ম্যানেজার 
  • SEO প্রফেশনাল 
  • পি আর
  • ব্র‍্যান্ডিং 
  • ডাটা এন্ট্রি

এরকম আরো অনেক প্রকারের ফ্রিল্যান্সিং এর কাজসমূহ পাওয়া যাবে। একজন ফ্রি ল্যান্সার হতে আপনাকে যেকোনো একটা কাজে প্রথমে দক্ষতা অর্জন করে সেই কাজ শুরু করতে প্রফেশনালি। 

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ এর কোন কাজের চাহিদা সবচেয়ে বেশি???

ফ্রিল্যান্সিং হলো বিভিন্ন কাজের সমষ্টি। ফ্রি ল্যান্সিং এর কাজ সমূহের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় একটা কাজ হলো ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সপার্ট। ডিজিটাল মার্কেটিং বর্তমান ফিল্যান্সিং জগতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ সমূহের অন্যতম। একজন প্রফেশনাল ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে এক্সপার্ট ফ্রিল্যান্সারদের চাহিদা আকাশচুম্বী। 

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজসমূহের মধ্য আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ হলো ওয়েব ডিজাইনিং ও গ্রাফিক্স ডিজাইনিং। ডিজিটাল এই মাধ্যমে একজন প্রপার ফ্রিল্যান্স ডিজাইনারের গুরুত্ব অনেক। যেকোনো ওয়েবসাইট থেকে শুরু করে পোস্টার, ব্যানার,ফেস্টুন,ডিজিটাল ও বিজনেস কার্ড তৈরিতে একজন ডিজাইনের চাহিদা তার অর্থের সাথে প্রাপ্য অর্থের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হতে হবে।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহের মধ্যে ওয়েব ডেভলপমেন্ট সবচেয়ে জরুরি। বর্তমান যুগে ব্যাক্তিগত কিংবা বিজনেস রিলেটেড যেকোনো ক্ষেত্রে একটা ওয়েবসাইটের প্রয়োজনীয়তা সবার ওপরে। আর সেই ওয়েবসাইট তৈরি করতে একজন দক্ষ ওয়েবসাইট ডেভেলপারের প্রয়োজন, যেক্ষেত্রে একজন দক্ষ ডেভেলপারের বিকল্প নাই। সেক্ষেত্রে একজন ফ্রিল্যান্সার ওয়েব ডেভেলপার সহজেই ওয়েবসাইট বানিয়ে সেই ওয়েবসাইটের ডেভেলপমেন্টে ও মেইনটেনেন্সে দায়িত্ব পেয়ে সহজেই ভালো এমাউন্টের অর্থ উপার্জন করতে পারে একজন ফ্রিল্যান্স ওয়েব ডেভেলপার। 

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজসমূহ এর মধ্যে আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ হলো ফ্রিল্যান্সিং রাইটার। বর্তমানে একজন ফ্রিল্যান্স রাইটারের গুরুত্ব সর্বত্র। একটা ব্যাক্তিগত কিংবা বিজনেস কিংবা যেকোনো ব্লগ সাইটের জন্য বর্তমান রাইটার হায়ার করা হচ্ছে,যাদের উৎপত্তি থেকে শুরু করে বেশিরভাগের যোগান দেয় ফ্রি ল্যান্স রাইটাররা। ব্যাক্তিগত ব্লগ সবাই থেকে শুরু করে বিজনেস সাইট থেকে শুরু করে সোশ্যাল মিডিয়া সাইট কিংবা সরাসরি যেকোনো নিউজ সাইটের জন্যও আজকাল এডিটরের প্রয়োজন, সেক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্স রাইটাররা ও কপিরাইট এক্সপার্টরা সেসব চাহিদা পূরণ করে মার্কেটপ্লেসে। তাছাড়াও নিউজের স্ক্রিপ্ট, সিনেমা বা নাটকের ডায়ালগ, থেকে শুরু করে রিসার্চ রাইটার পর্যন্ত অসংখ্য কাজের সুযোগ ও তার বিনিময়ে একটা ভালো হ্যান্ডসাম এমাউন্ট ইনকামের সুযোগ ও থাকছে।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহের মধ্যে আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ হলো ফটোগ্রাফি ও ভিডিও এডিটিং। বর্তমানে বিজনেস, ম্যাগাজিন, টেলিভিশন, সিনেমা থেকে শুরু করে যেকোনো ক্ষেত্রে একজন ভালো মানের ফটোগ্রাফার ও ভিডিও এডিটরের চাহিদা রয়েছে ব্যাপক। শুধু এসব ক্ষেত্রেই না,এমনকি বিয়ে বাড়ির ওয়েডিং ফটোগ্রাফি তে ও মানুষ এখন ব্যাপক অর্থের বিনিময়ে একজন ফটোগ্রাফার ও ভিডিও এডিটরের খোঁজে থাকে।

ফ্রিল্যান্সিং কাজের জন্য কিসের প্রয়োজন?? 

বর্তমান একজন ভালোমানের ফ্রিল্যান্সার হতে সবচেয়ে বেশি এবং গুরুত্বপূর্ণ হলো ধৈর্য। অ

অর্থাৎ লেগে থাকার ক্ষমতা। একজন ভালো ফ্রিল্যান্সার হতে গেলে ধৈর্যের কোনো বিকল্প নেই। ধৈর্য ধরে নিজের স্কিল ডেভেলপমেন্ট করে মার্কেটপ্লেসে লেগে থাকলে কাজের অভাব হবে না। আর কাজ পেলে অর্থের না। 

তবে বর্তমান একজন ফ্রিল্যান্সারের একটা ব্যাক্তিগত কম্পিউটার থাকা জরুরি। এর ফলে বিভিন্নরকম কাজ শিখার পাশাপাশি কাজ করতে কোনোপ্রকার জটিলতার সৃষ্টি হয় না।যার ফলে সময়ের এবং ব্যাক্তিগত অনেক কিছুর অপচয় থেকে বেচে থাকা যায়।একটা মোটামুটি মানের বা নিম্নমানের পার্সোনাল কম্পিউটার বা ভালো স্মার্টফোন ও ফ্রিল্যান্সিং এর অনেক কাজ করে দেয়।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

ফ্রিল্যান্সিং কেন করবো?

বর্তমান একজন বাংলাদেশের মতো অধিক জনসংখ্যার বিস্ফোরণ হওয়ার মতো দেশে চাকরির অভাবে প্রতিনিয়ত যেখানে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে লক্ষ লক্ষ সিভি জমা পড়ছে শুধু একটা চাকরির জন্য,তাও অত্যান্ত আবার স্বল্প বেতনের, সেখানে ফ্রিল্যান্সিং এর গুরুত্ব সহজেই অনুধাবন করা যায়। বর্তমান ফ্রিল্যান্সিং এর ট্রেনিং করে মার্কেটপ্লেস থেকে শুরু করে বিভিন্ন সেক্টরে অসংখ্য দক্ষ শিক্ষার্থী থেকে শুরু সাধারণ মানুষ ফ্রিল্যান্সিং এ যুক্ত হচ্ছে। তাছাড়া ফ্রিল্যান্সিং এ অনেক পড়াশোনায় মেধাবী হওয়ার ও খুব বেশি প্রয়োজন হয় না। 

ফ্রিল্যান্সিং করে দেশের অসংখ্য বেকার যেমন আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ পেয়েছে, তেমনি অনেক পরিবার ও কর্মসংস্থানের মাধ্যমে আর্থিক স্বচ্ছলতা ফিরে পেয়েছে । তাছাড়া বর্তমান তরুণ প্রজন্ম মাদক ছেড়ে ফ্রিল্যান্সিংয়ের প্রতি ঝোঁকায় তরুণ তরূণীরা একদিকে যেমন দেশের অর্থ উপার্জন বৃদ্ধি করছে বৈদেশিক আয়ের মাধ্যমে,অন্যদিকে ব্যাক্তিগত ও পারিবারিক স্বচ্ছলতার মাধ্যমে উন্নত জীবন যাপনের সুযোগ পাচ্ছে।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো??

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজসমূহের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং শিখে অর্থ উপার্জনের পূর্বশর্ত হলো সেই কাজ শেখা ও সেই কাজে দক্ষতা অর্জন করা। সেই কাজে দক্ষতা অর্জনের পূর্বে সবার আগে প্রশ্ন আসে কোথায় সেই দক্ষতা অর্জন করবো। 

বর্তমানে সবচেয়ে সহজলভ্য দক্ষতা অর্জনের মাধ্যম হলো ইউটিউব।  ইউটিউবে যেকোনো ব্যাপারে অসংখ্য ভিডিওর পাশাপাশি ফ্রি কোর্স পাওয়া যায়।  তাছাড়া বেশ কিছু আইটি ইন্সটিটিউট আছে যারা,ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য বিভিন্ন স্কিলসের ট্রেনিং করায় নির্দিষ্ট অর্থের বিনিময়ে এবং শেষ পর্যন্ত সাহায্য করে, যেটা অবশ্য ফ্রি তে ইউটিউবে পাওয়া যায় না। তাই ফ্রিল্যান্সারের সামর্থ্যানুযায়ী সে যেকোনো মাধ্যমে থেকে শিখতে পারে। আবার এখন বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠান ও ফ্রি তে ট্রেনিং করাচ্ছে।

সর্বশেষ, ফ্রিল্যান্সিং শিখার সুযোগ পেলে ও ফ্রিল্যান্সিং শিখার জন্য মনোনিবেশ করলে ধৈর্য ও দক্ষতা বৃদ্ধি করতে লেগে পড়ুন ফ্রিল্যান্সিং এ মনযোগ সহকারে। ব্যাক্তিগত ও দেশের সাফল্যের জন্য ফ্রিল্যান্সিং বর্তমানে অনেক সম্মানজনক এবং একটা জনপ্রিয় পেশা হতে পারে ; যা আমাদের দেশের ভবিষ্যৎ কে আরও সমৃদ্ধ করবে একজন দক্ষ মানুষের কারণে।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ সম্পর্কে আরও কিছু  বিজ্ঞপ্তি পরুনঃ How a search for freelance jobs near me can open a new way!!

 

 

 

 

 

Leave a Comment